Education

দরখাস্ত লেখার নিয়ম | আবেদন পত্র লেখার নিয়ম ছবি ও ভিডিও সহ ২০২২

কিভাবে দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লিখবেন তা এই টিউন থেকে বিস্তারিত জানতে পারবেন

দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম আমরা প্রায় সকলেই জানি। কিন্তু হয়তো অনেকের এই নিয়ম সঠিক মনে নেই। স্কুল জীবনে আমাদের বাংলা পরীক্ষার দরখাস্ত/ আবেদন পত্র বা চিঠি লেখাই লাগত। বাস্তব জীবনেও অনেকেই বিভিন্ন প্রয়োজনে দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লিখেছে। এই টিউন থেকে আমরা দরখাস্ত দেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম সম্পর্কে জানতে চলেছি। যদিও আমরা প্রায় সকলেই এ সম্পর্কে জানি। যদি না জেনে থাকেন তাহলে জেনে নিতে সমস্যা কোথায়! আর যদি ভুলে গিয়ে থাকেন তাহলে না হয় এই টিউন পড়ে মনে করে নিবেন।

দরখাস্ত বা আবেদনপত্র দুটিই একই বিষয়। কেউ একে দরখাস্ত বলে আবার কেউ একে আবেদন পত্র বলে। বর্তমান এই প্রযুক্তির সময়ে আবেদন পত্র বা দরখাস্তের ব্যবহার অনেক কমে গেছে। বেশীরভাগ সময় ইমেইল এর মাধ্যমে আবেদন করা হয়ে থাকে। কিন্তু, ইমেইল এর মাধ্যমে আবেদন করলেও কাগজে দরখাস্ত লেখার নিয়ম/ আবেদন পত্র আর ইমেইলের মাধ্যমে লেখা দরখাস্ত প্রায় একই রকম। তবে, অনেক ক্ষেত্রে আমরা ইমেইলের মাধ্যমে আবেদন করতে পারি না। যেমনঃ স্কুলে ছুটির জন্য আবেদনের ক্ষেত্রে, শিক্ষা সফরে আবেদনের ক্ষেত্রে ইত্যাদি। তবে, চাকরির দরখাস্ত বেশিরভাগ ইমেইলের মাধ্যমে আবেদন করা হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

তাহলে চলুন দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম জেনে নেওয়া যাক। এসব নিয়ম জানার পাশাপাশি আমি আপনাদেরকে কিছু নমুনা দরখাস্তও এই পোস্টে দিয়ে দিব যাতে করে আপনারা সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

Table of Contents

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কি?

দরখাস্ত বা আবেদনপত্র লেখার নিয়ম জানার আগে আমাদের জেনে নেওয়া প্রয়োজন দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কি!

উত্তরঃ যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে ছুটি, বদলি, সাহায্য বা কোন পদে নিয়োগপ্রাপ্তির জন্য যে অনুষ্ঠানিক পত্র লেখা হয় তাকে দরখাস্ত বা আবেদন পত্র বলে।

দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র সব সময় সুন্দর, বোধগম্য, সাধু ও মিষ্ট ভাষায় লিখতে হয় এবং এর পাশাপাশি ভাষাগত ত্রুটির দিখে লক্ষ রাখতে হয়। অসম্পূর্ণ এবং ভাষাগত ত্রুটিময় আবেদন অনেক সময় মূল উদ্দেশ্যের বাধা হয়ে দাঁড়ায়। পক্ষান্তরে সুন্দর, নির্ভুল, সুলিখিত দরখাস্ত প্রার্থীর যোগ্যতা, দক্ষতা, শিক্ষা ও রুচি সম্পর্কে কর্তৃপক্ষের অনুকূল দৃষ্টি লাভে ও উচ্চ ধারণা পোষণে সাহায্য করে।

তাই যেকোনো আবেদন পত্র বা দরখাস্তে প্রয়োজনীয় সব তথ্য থাকা দরকার। দরখাস্ত লেখার সময় নিম্নলিখিত দিকগুলোর প্রতি বিশেষভাবে যত্নবান হতে হবে।

১. প্রাপকের নাম ও ঠিকানাঃ প্রাপকের অংশে নিয়োগকর্তার নাম, পদ বা নিয়োগকারী সংস্থার নামের বানান সঠিক এবং ঠিকানা নির্ভুল হতে হবে। অনেক সময় ঝামেলা এড়াতে বা গোপনীয়তা রক্ষা করতে পোস্টবক্স কিংবা কোনো পত্রিকার মাধ্যমে দরখাস্ত আহবান করা হয়। যেমন –

বিজ্ঞাপন দাতা
পোস্ট বক্স নং ০১২
প্রযত্নে : দৈনিক প্রথম আলো, ঢাকা

দরখাস্তে প্রাপকের নাম ও ঠিকানা লিখতে হবে

২. বিষয়ঃ এ অংশে কাঙ্ক্ষিত বিষয় বা পদের কথা স্পষ্ট করে উল্লেখ করতে হবে। আবেদনের বা দরখাস্তের মূল বিষয়টি যেন কর্তৃপক্ষ সহজে অনুধাবন করতে পারে সে জন্য সরল ভাষায় তার উল্লেখ প্রয়োজন।

৩. সম্বোধনঃ আনুষ্ঠানিক সম্বোধন হবে – মহোদয়, মহাত্মন, জনাব ইত্যাদি।

৪. আবেদনের সূত্রঃ সাধারণত পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চাকরির নিয়োগের কথা জানা যায়। তাই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখসহ সংশ্লিষ্ট পত্রিকার সূত্র উল্লেখ করে অথবা বিশ্বস্ত সূত্রের কথা জানিয়ে আবেদনপত্রের বক্তব্য শুরু করতে হয়।

৫. আবশ্যিক তথ্যঃ আবেদনপত্রে আবেদনকারীর পূর্ণ নাম, বাবা-মায়ের নাম, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা, জন্মতারিখ, নাগরিকত্ব, শিক্ষাগত যোগ্যতার বিবরণ ইত্যাদি যথাযথভাবে সন্নিবেশ করতে হবে।

৬. অতিরিক্ত তথ্যঃ কোনো উচ্চতর ডিগ্রি, প্রশিক্ষণ কোর্স বা সংশ্লিষ্ট কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে তাও আবেদনপত্রে উল্লেখ করা প্রয়োজন।

৭. সংযুক্তিঃ দরখাস্তের শেষে আবেদনে বর্ণিত তথ্যের প্রামাণ্য দলিল হিসেবে যা কিছু সংযুক্ত করা হয়। যেমনঃ বিভিন্ন পরীক্ষা পাসের সনদ, প্রাপ্ত নম্বরপত্র, প্রশংসাপত্র, নাগরিকত্বের সনদ, অভিজ্ঞতার সনদ, সত্যায়িত করা ছবি ইত্যাদির উল্লেখ করতে হয়। কী কী প্রামাণ্য কাগজ দেওয়া হলো, তা ক্রমানুসারে উল্লেখ করা বাঞ্ছনীয়।

দরখাস্ত বা আবেদন পত্রের সমাপ্তি বা সনযুক্তির ছবি

৮. মার্জিনঃ আবেদনপত্রে প্রয়োজনীয় মার্জিন থাকতে হয়। পৃষ্ঠার উপরে এবং বামে প্রয়োজনীয় মার্জিন রেখে দরখাস্ত লিখতে হবে।

এসমস্ত তথ্য উল্লেখ করে একটি আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লিখতে হয়। কোন তথ্য অনুপস্থিত থাকলে আপনার লেখা আবেদন পত্র বা দরখাস্ত অগ্রহণযোগ্য হতে পারে।

আপনি কি অনলাইনে আয় করতে চান? তাহলে অনলাইনে আয় করা সম্পর্কিত আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা টিউনগুলো পড়তে পারেন –

আবেদন পত্র লেখার নিয়ম বাংলা

দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম একই বিষয়। দরখাস্তকে অনেকেই আবেদন পত্র বলে থাকে। দরখাস্ত ও আবেদন একটি অপরটির সমার্থক শব্দ। এছাড়া বাংলা দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখার ধরণ ইংরেজি দরখাস্ত বা আবেদন পত্রের মতোন। তাই বাংলায় এর লেখার সঠিক নিয়ম জানলে ইংরেজিতেও লিখতে পারবেন।

আবেদনপত্র বা দরখাস্ত লেখার নমুনা

এসমস্ত তথ্য উল্লেখ করে দরখাস্তটি কেমন হবে তা একটি নমুনা নিচে তুলে ধরলাম।

তারিখঃ ১৫/০৯/২০২১ ইং
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
রংপুর জিলা স্কুল,
রংপুর।

বিষয়ঃ ৭ দিনের ছুটির জন্য আবেদন

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের নিয়মিত একজন ছাত্র/ছাত্রী। (এখানে সংক্ষেপে দরখাস্তের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য উল্লেখ করতে হবে)

বিনীত
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
মোঃ ইমরান হোসেন
দশম শ্রেণি, রোল – ০১
শাখা – ক, বিজ্ঞান বিভাগ

ছুটির দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

ছুটির দরখাস্ত বা ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম একেক সময় একেক রকম হতে পারে। স্কুল কলেজে ছুটি পত্র লেখার ভাষা ও চাকরি থেকে ছুটি পত্রে ভাষা আলাদা হয়ে থাকে। বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন কারণে ছুটির দরখাস্ত লেখার প্রয়োজন পরে। যেমনঃ

  • অগ্রীম ছুটির জন্য আবেদন
  • অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন

ইত্যাদি ইত্যাদি। নিম্নে ছুটির জন্য কিছু আবেদন পত্র দিয়ে দেওয়া হলো।

অগ্রিম ছুটির দরখাস্ত বা অগ্রিম ছুটির আবেদন পত্র

কলেজে অগ্রিম ছুটির জন্য কিভাবে দরখাস্ত লিখতে হয় তা নিয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ একটি আর্টিকেল প্রকাশ করা হয়েছে। আপনি চাইলে এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন – দরখাস্তঃ স্কুল/ কলেজে অগ্রিম ছুটির জন্য আবেদন পত্র

তারিখঃ ০১/০১/২০২১ ইং
বরাবর
প্রধান শিক্ষক
রংপুর জিলা স্কুল, রংপুর

বিষয়ঃ অগ্রিম ছুটির জন্য আবেদন

জনাব,
বিনীত নিবেদন এই যে, আমি ইমরান হোসেন আপনার বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর একজন নিয়মিত ছাত্র। আগামী ০৫/০১/২০২১ ইং আমার বড় বোনের শুভ বিবাহ অনুষ্ঠিত হবে। বিধায় ০৪/০১/২০২১ ইং থেকে ১০/০১/২০২১ ইং পর্যন্ত মোট ৭ দিন আমি বিদ্যালয়ে উপস্থিত হতে পারবো না।

অতএব, মহোদয়ের নিকট আমার আকুল আবেদন এই যে, উপরোক্ত বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকে ৭ দিনের অগ্রিম ছুটি প্রদানে বাধিত করবেন।

বিনীত
আপনার নিয়মিত ছাত্র
মোঃ ইমরান হোসেন
শ্রেণীঃ ১০ম
রোলঃ ০৯
বিভাগঃ বিজ্ঞান
শাখাঃ ক

অসুস্থতার জন্য ছুটির দরখাস্ত বা অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন

তারিখঃ ২২/০১/২০২১ ইং
বরাবর প্রধান শিক্ষক
রংপুর জিলা স্কুল, রংপুর

বিষয়ঃ অসুস্থতার জন্য ছুটির আবেদন

জনাব,
সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর একজন নিয়মিত ছাত্র/ ছাত্রী। অসুস্থতার কারণে আমি ১৫ই জানুয়ারি ২০২১ থেকে ২১শ জানুয়ারি ২০২১ আমি বিদ্যালয়ের উপস্থিত হতে পারি নি। (দরখাস্তে অসুস্থতা সম্পর্কে আরো কিছু উল্লেখ করতে পারেন)

অতএব, বিনীত প্রার্থনা এই যে, উপরোক্ত বিষয়টি বিবেচনা করে আমাকে ৬ দিনের ছুটি দিয়ে বাধিত করবেন।

বিনীত
আপনার নিয়মিত ছাত্র
রাজিন সালেহিন
শ্রেণীঃ ৮ম
রোলঃ ৫
শাখাঃ ক

চাকরির দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা চাকরির আবেদন লেখার নিয়ম

অন্যান্য দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম আর আর চাকরির দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম প্রায় একই রকম। কিন্তু, চাকরির দরখাস্তে বা আবেদন পত্রে নতুন কিছু জিনিসের সংযোগ করার প্রয়োজন পড়ে। এই সমস্ত প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছাড়া চাকরির আবেদন গ্রহণযোগ্য হবে না।

চাকরির আবেদন পত্রে প্রয়োজনে যে সব জিনিসপত্র দরকারি হতে হতে পারে –

  • শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ জীবনবৃত্তান্ত
  • এসএসসি ও এইচএসসি সার্টিফিকেটের ফটোকপি
  • সনদপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি
  • নাগরিকত্ব সনদ
  • চারিত্রিক সনদ
  • সত্যায়িত পাসপোর্ট সাইজের ছবি

এছাড়াও আরো অনেক জিনিসপত্রের হতে পারে। তা দরখাস্ত বা আবেদন পত্রের নোটিশে দেখতে পারবেন।

চাকরির আবেদন পত্র বা চাকরির দরখাস্তের নমুনা

নিচে চাকরির আবেদন পত্র বা দরখাস্তের একটি নমুনা কপি দিয়ে দিলাম। এই নমুনা কপি দেখে আপনার হয়তো বুঝতে পারবেন কিভাবে চাকরির আবেদন পত্র লিখতে হয়।

চাকরির আবেদন পত্রের নমুনা, চাকরির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম, চাকরির দরখাস্তের নমুনা, চাকরির দরখাস্ত লেখার নিয়ম

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে চাকরির আবেদন

তারিখঃ ২৪/০৭/২০২১ ইং
মাননীয় মহাপরিচালক
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর
মিরপুর, ঢাকা।

বিষয়ঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের আবেদন

মহোদয়,
সবিনয়ে নিবেদন এই যে, গত ১৬ই জুন ২০২১ তারিখে দৈনিক ‘জনকণ্ঠ’ পত্রিকায় প্রকাশিত বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানতে পারলাম যে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে লোক নিয়োগ করা হবে। আমি উক্ত পদের একজন প্রার্থী হিসেবে আবেদন করছি। নিম্নে আমার শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ জীবনবৃত্তান্ত উল্লেখ করা হলোঃ

১. নামঃ ফাল্গুনী আহমেদ দীপিকা
২. পিতার নামঃ কাজী শামসুদ্দিন আহমেদ
৩. মাতার নামঃ বেগম হাফিজা সুলতানা
৪. স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানাঃ ফজলুল হক মুন্সী বাড়ি, গ্রাম – ডুমুরখালি, পোস্ট -ঝিকরগাছা, জেলা – যশোর।
৫. জন্ম তারিখঃ ২৮শে মে, ১৯৯২
৬. জাতীয়তাঃ বাংলাদেশি
৭. ধর্মঃ ইসলাম
৮. শিক্ষাগত যোগ্যতার বিবরণঃ

পরীক্ষার নাম পাসের বছর গ্রুপ জিপিএ/ শ্রেণি বোর্ড/ বিশ্ববিদ্যালয়
এসএসসি ২০০৮ বিজ্ঞান জিপিএ ৫ যশোর বোর্ড
এইচএসসি ২০১০ বিজ্ঞান জিপিএ ৫ যশোর বোর্ড
বিএ ২০১৩ মানবিক দ্বিতীয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

অতএব, উপর্যুক্ত তথ্যাবলির আলোকে অনুগ্রহপূর্বক আমাকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য বিবেচনা করলে বাধিত হব।

বিনীত নিবেদক
ফাল্গুনী আহমেদ দীপিকা

সংযুক্তিঃ
১. সনদপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি – ৩ কপি
২. নাগরিকত্ব ও চারিত্রিক সনদ – ২ কপি
৩. সত্যায়িত পাসপোর্ট সাইজ ছবি – ৩ কপি

ইংরেজিতে দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা ইংরেজিতে আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

বাংলায় দরখাস্ত লেখার নিয়ম আর ইংরেজিতে দরখাস্ত লেখার নিয়ম একই রকম। বাংলা ও ইংরেজিতে দরখাস্ত লেখার মধ্যে কোন পার্থক্য নেই। তাই বাংলায় লেখা দরখাস্তের নিয়ম মেনে ইংরেজিতেও দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লিখতে পারেন।

ইংরেজিতে দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখার নমুনা

Date: 01-01-2021
To The Manager
Bangladesh Bank Ltd.
Dhaka

Subject: এখানে বিষয় লিখবেন

Sir,
দরখাস্ত বা আবেদন পত্রের বর্ণনা লেখবেন এখানে।

You’re Obedient
MisterX
Senior Officer
Bangladesh Bank Ltd. Dhaka

দরখাস্ত লেখার নিয়ম ছবি

দরখাস্ত লেখার নিয়মের ছবির জন্য নিচের ভিডিওটি প্লে করুন। ভিডিওটিএ সম্পূর্ণ একটি দরখাস্ত লিখে দেখানো হয়েছে। তাই ভিডিওটি দেখলে আপনি বিষয়টি সহজেই বুঝতে পারবেন।

দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম ভিডিও

উপরের লেখা আর্টিকেলটি যদি আপনার বুঝতে অসুবিধা হয় তাহলে এই ভিডিওটি দেখতে পারেন। এই ভিডিওতে দেখানো হয়েছে কিভাবে সঠিল পদ্বতিতে একটি দরখাস্ত ও আবেদন পত্র লিখতে। অনেক সুন্দর করে ভিডিওতে আলোচনা করা হয়েছে।

এই ছিল আমাদের আজকের টিউন। আশা করছি দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম নিয়ে লেখা এই টিউন আপনার কাজে লাগবে। দরখাস্ত লেখার নিয়ম ও আবেদন পত্র লেখার নিয়ম নিয়ে আপনার মনে হয়তো কিছু প্রশ্ন থাকতে পারে। এই রকম কিছু প্রশ্ন ও উত্তর চলেন জেনে নেই।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

দরখাস্ত লেখার নিয়ম নিয়ে আপনাদের মনে কিছু কমন প্রশ্ন আসতে পারে। চলুন এসকল প্রশ্ন এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর জেনে নেওয়া যাক।

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কি এক পৃষ্ঠায় লিখতে হবে?

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র এক পৃষ্ঠায় লেখা ভালো। তবে প্রয়োজনে একাধিক পৃষ্ঠা নিতে পারেন। তবে, দরখাস্ত বা আবেদন পত্র এক পৃষ্ঠার অপর পাশে লেখা যাবে না।

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কোন ধরনের পৃষ্ঠায় লিখতে হবে?

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র আপনার যে কোন ধরনের পৃষ্ঠায় লিখতে লিখতে পারেন। তবে ভালো মানের পৃষ্ঠা বেছে নেওয়া বুদ্ধি মানের কাজ হবে। তবে, আপনি চাইলে A4 পৃষ্ঠা বেছে নিতে পারেন।

দরখাস্ত বা আবেদন পত্রে অতিরিক্ত কাগজ পত্র কিভাবে যুক্ত করব?

মূল দরখাস্তের সাথে অন্যান্য কাগজ পত্র পিন করে যুক্ত করতে হবে।

দরখাস্তে বা আবেদন পত্রে কি মার্জিন টানা যাবে?

মার্জিন টানা বাধ্যতামূলক কিছু নয়। আপনি চাইলে মার্জিন টানতেও পারেন আবার নাও টানতে পারেন। মার্জিন টানলে পেন্সিল দিয়ে মার্জিন টানতে হবে। যদি মার্জিন না টানেন তাহলে উপর ও বাম পাশে ১ স্কেল পরিমাণ জায়গা ফাঁকা রাখতে হবে।

দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কি হাতের লেখায় লিখতে হবে?

যদি স্কুল, কলেজের জন্য দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখেন তাহলে হতের লেখার জমা দেওয়া ভালো হবে। তবে যদি অফিসে কিংবা চাকরির জন্য আবেদনের জন্য দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখেন তাহলে কম্পিউটার কম্পোসে লিখতে পারেন।

শেষ কথা

দরখাস্ত লিখতে গিয়ে আপনি যদি কোন সমস্যার মুখোমুখি হন তাহলে আপনি আপনার বন্ধু-বান্ধবের পরামর্শ নিতে পারেন অথবা, এই টিউনে দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম মেনে লিখতে পারেন।

এরকম আরো অনেক টিউন পেতে আমাদের সাথেই থাকুন ও নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

Imran Hossan

I am Imran, a student with the dream of becoming a professional developer, I love to explore, explore, learn interesting things on the Internet.

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Hey Dear!! Thank you for visit on TuneBN. Please Disable your AD Blocker to continue browsing.