NID CardGovernment Info

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করার নিয়ম

আসসালামু ওয়ালাইকুম স্বাগতম আপনাকে টিউনবিএনের নতুন আরেকটি টিউনে/ আর্টিকেলে। এই টিউনের মূল আলোচ্য বিষয় লো মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র। অর্থাৎ কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখবেন, আসলে দেখা সম্ভব কি না ইত্যাদি আলোচনা করা হবে। আপনি যদি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য অনেক হেল্পফুল হতে যাচ্ছে। তাহলে এই টপিক নিয়ে বিষদভাবে আলোচনা করে বিষয়টি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। বাংলাদেশের প্রত্যক ১৮ বছর বয়সী নাগরীক ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রে জন্য আবেদন করতে পারবে এবং তার আবেদনের প্রেক্ষিতে জাতীয় পরিচয় পত্র নিতে পারবে।

জাতীয় পরিচয় পত্রের গুরুত্ব অনেক বেশী হওয়ার মূল কারণ হলো সরকারী সকল সুবিধা পেতে হলে অবশ্যই নাগরীকের জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড থাকতে হবে। আর এই ভোটার আইডি কার্ড এটাই নির্দেশ করে আপনি বাংলাদেশের নাগরিক।

আরো পড়ুনঃ

আমরা সকলেই জানি বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। ভোট দানের মাধ্যমে দেশের সরকার গঠিত হয় আর তিনি দেশ পরিচলনা করেন। আর এই ভোট শুধুমাত্র ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র থাকা ব্যাক্তিরা দিতে পারবে। তাহলেই বুঝতেই পারছেন এই জাতীয় পরিচয় পত্র কতটা গুরুত্বপূর্ণ।

তো এই ডকুমেন্টের গুরত্বপূর্ণ বুঝতে পারছেন। হঠাৎ করে আমাদের জাতীয় পরিচয় পত্রের দরকার হতেই পারে। আর যখন দরকার হবে তখন যদি জাতীয় পরিচয় পত্র আমাদের সাথে না থাকে তখন কি করব? নিশ্চয়ই আপনাকে এ জন্য ভোগান্তির শিকার হতে হবে তাই না? আর সবসময় তো জাতীয় পরিচয় পত্র সাথে রাখা সম্ভব না। তাই এই ভোগান্তির এড়ানোর জন্য সবচেয়ে সহজ যে সমাধান তা হলো মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করা বা দেখা।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র যদি আমরা চেক করতে পারি তাহলে আমাদেরকে সবসময় এটিকে সাথে রাখতে হবে না। কিন্তু আসলেই কি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড দেখা সম্ভব? আপনার কি মনে হয় এটি সম্ভব? আপনার যাই মনে হোক না কেন এই ডিজিটাল বাংলাদেশে এটি সম্ভব।

আপনি খুব সহজে আপনার হাতে থাকা যেকোন মোবাইল ফোন দিয়ে মোবাইল নাম্বারের সাহায্যে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখতে পারবে। এটি খুব একটা কঠিন কাজ না। নিমেষের মধ্যে কোড ডায়াল করে অথবা ইন্টারনেটের সাহায্য কাজটি করা সম্ভব হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্রের গুরুত্ব

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করার আগে চলুন এটির গুরুত্ব জেনে নেওয়া যাক –

  1. ভোট দেওয়ার অধিকার পাবে
  2. নাগরিত্বের পরিচয় বহন করবে
  3. সিম উত্তেলন করতে পারবে
  4. বিভিন্ন ধরনের সেনসেটিভ অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবে। যেমনঃ ব্যাংক
  5. সরকারী বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা পাবে

ইত্যাদি ইত্যাদি।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করা

এবার চলুন এই বিষয়টি বিস্তারিত আলোচনা মাধ্যমে জেনে নেওয়া যাক। মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র আপনি দুইটি উপায়ে দেখতে পারবেন।

  • USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যমে
  • ইন্টারনেটের সাহায্যে নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট থেকে

দুইটি উপায়ই অনেক সহজ আপনার কাছে যেটি বেশী ভালো লাগবে সেই পদ্বতি ব্যবহার করার পরামর্শ রইল।

USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যমে

USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যমে জাতীয় পরিচয় পত্র

আপনি যদি কোন রূপ ঝামেলায় না গিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড বের করতে চান তাহলে USSD কোডের মাধ্যমে বের করতে পারেন। এটি অনেক সহজ পদ্বতি। তবে এই পদ্বতিতে আপনি শুধু ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার দেখতে পারবেন। ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার ছাড়া অন্য কিছু তথ্য দেখতে পারবেন না। আর শুধুমাত্র সেই ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার দেখতে পারবেন যে নাম্বার দিয়ে সিমটি উত্তেলন করা হয়েছে।

অর্থাৎ এই পদ্বতিতে আপনাকে একটি কোড ডায়াল করতে হবে আর যে সিম দিয়ে কোডটি ডায়াল করবেন সেই সিমের জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার দেখতে পারবেন।

তো USSD পদ্বতিতে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখার জন্য *1600# ডায়াল করুন। *1600# কোডটি ডায়াল করার পর কিছু আপশন পাবেন। সেখানে কিছু স্টেপ কমপ্লিট করার পর আপনি সেই সিম যে জাতীয় পরিচয় পত্র দ্বারা রেজিস্ট্রেশন হয়েছে সেই জাতীয় পরিচয় পত্রের আইডি নাম্বার দেখতে পারবেন।

এভাবে আপনি খুব সহজেই USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যমে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

ইন্টারনেটের সাহায্যে নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট থেকে

এই পদ্বতিও খুব একটা কঠিন না। অনেক সহজ একটি পদ্বতি। এই পদ্বতিটি আমার কাছে অনেক পছন্দনীয়। কেননা এই পদ্বতিতে আপনি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র পূর্ণাঙরূপে বের করতে পারবেন।

অর্থাৎ, USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যোমে আমরা শুধু মাত্র জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বারই বের করতে পারি। কিন্তু সেখান থেকে আর অন্য কোন তথ্য বের করতে পারি না। তাছাড়া জাতীয় পরিচয় পত্রটিকে প্রিন্টবল করে নেওয়া সম্ভব না। তবে ইন্টারনেটের সাহায্যে নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট থেকে আমরা অনেক সহজেই জাতীয় পরিচয় পত্রের পিডিএফ ভার্সন ডাউনলোড করে নিতে পারব। আর এখানে জাতীয় পরিচয় পত্রের সকল তথ্য পেয়ে যাব এছাড়াও এটিকে প্রিন্ট করে আরো অন্য কোন কাজে ব্যবহার করতে পারব।

নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট থেকে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করতে হলে অবশ্যই যে মোবাইল নাম্বার দিয়ে বের করবেন সেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইটে একটি অ্যাকাউন্ট করা থাকতে হবে। আর যদি অ্যাকাউন্ট করা না থাকে তাহলে পারবেন না। অ্যাকাউন্ট করা না থাকলে অ্যাকাউন্ট করে নিবেন তাহল পরবর্তীতে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র চেক করতে পারবেন।

যদি অ্যাকাউন্ট করা থাকে তাহলে প্রথমে ভিজিট করুন নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট। ওয়েবসাইটের লিংক – https://services.nidw.gov.bd/

নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইটে লগিন

ভিজিট করার পর স্ক্রল করে নিচে আসুন। স্ক্রল করে নিচে আসার পর লগিন করার জন্য একটি ফোরাম পাবেন। সেখানে আপনার কাছ থেকে ইউজারনেম বা জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড চাইবে। মোবাইল নাম্বার দিয়ে পোর্টালে রেজিস্ট্রেশন করার সময় যে ইউজারনেমটি বসিয়ে ছিলেন সেটিই দিবেন এবং অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড। তথ্য দুইটি দেওয়ার পর ক্যাপচার পূরণ করে লগিন করে নিন।

কোন তথ্য যদি আপনার মনে না থাকে সেক্ষেত্রে আপনি তথ্যগুলো রিসেট করার সুযোগ পাবেন।

নির্বাচন কমিশনার ওয়েবসাইটে লগিন করা সফল হলে আপনাকে ড্যাশবোর্ডে নিয়ে যাবে। ড্যাশবোর্ডে যাওয়ার পর অনেকগুলো অপশন পাবেন। ড্যাশবোর্ড থেকে প্রোফাইলে গেলে সেখানে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড এর সকল তথ্য পেয়ে যাবেন এবং ডাউনলোড অপশনে গেলে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রের পিডিএফ ভার্সন ডাউনলোড হওয়া শুরু হয়ে যাবে।

এভাবে খব সহজে নির্বাচন কমিশনারের ওয়েবসাইট থেকে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করতে পারবেন।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্টেশন

প্রকৃতপক্ষে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্ট্রেশন করা হয় না। জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্ট্রেশন করার জন্য মোবাইল নাম্বারের প্রয়োজন হয়।

দেশের যেকোন ১৮ বছর বয়সী নাগরীক জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য রেজিস্ট্রেশন করার সুযোগ পায়। আর তার যে বয়স ১৮ তা প্রমাণ করার জন্য শুধুমাত্র জন্ম নিবন্ধন সনদের প্রয়োজন পড়ে। কিভাবে জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইনে চেক করবেন তা জানার জন্য এই আর্টিকেলটি পড়ুন – জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করার নিয়ম 2022

সাধারন জিজ্ঞাসা

এই আর্টিকেলটি নিয়ে আপনাদের মনে অনেকেরই অনেক ধরনের জিজ্ঞাসা থাকতে পারে। চলুন সেই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী এবং এর উত্তর জেনে নেই।

সত্যি কি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করা যায়?

হ্যাঁ। মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড বের করা যায়। কেননা জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্ট্রেশনের সময় আমাদেরকে একটি মোবাইল নাম্বার দিতে হয়। সেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে এই সুবিধা গ্রহণ করা সম্ভব।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখার সহজ উপায় কি?

USSD কোড ডায়াল এবং নির্বাচন কমিশনার ওয়েবসাইট থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখা সম্ভব। আমার কাছে নির্বাচন কমিশনার ওয়েবসাইট থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখা অনেক সহজ। কারণ এখান থেকে জাতীয় পরিচয় পত্রের সকল তথ্য দেখতে পাওয়া যায়।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করা যাবে?

আসলে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করা যায় না তবে জাতীয় পরিচয় পত্রের আবেদনর জন্য মোবাইল নাম্বারের প্রয়োজন রয়েছে।

শেষ কথা

এই ছিল মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করা নিয়ে আমাদের আর্টিকেল। আশা করছি আর্টিকেলটি পড়ে আপনি সহজেই জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড বের করতে পারবেন। জাতীয় পরিচয় পত্র বের করতে গিয়ে যদি আপনি কোনরূপ সমস্যার সম্মুখীন হন তাহলে তা কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারেন। আমি চেস্টা করব আপনার সমস্যার সমাধান দেওয়া জন্য। ধন্যবাদ টিউনবিএনে ভিজিট করার জন্য এবং এই আর্টিকেলটি পড়ার জন্য।

Imran Hossan

I am Imran, a student with the dream of becoming a professional developer, I love to explore, explore, learn interesting things on the Internet.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Adblock Detected

Hey Dear!! Thank you for visit on TuneBN. Please Disable your AD Blocker to continue browsing.